আকুপাংচার কি? আকুপাংচার কেনো ব্যবহার করা হয় এবং কিভাবে কাজ করে এর সুবিধা – অসুবিধা

আকুপাংচার কি?

আকুপাংচার এক বিশেষ ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি। Acus ও Puncture শব্দ দুটি থেকে আকুপাংচার কথাটি এসেছে। Acus অর্থ সুচ এবং Puncture অর্থ ফোটানো। সুতরাং আকুপাংচার শব্দের অর্থ হলো সুচ ফুটানো। আকুপাংচার একটি চীন দেশীয় চিকিৎসা পদ্ধতি। এ পদ্ধতিতে শরিরের বিভিন্ন স্থানে সুচ ফুটিয়ে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করা হয়। এ চিকিৎসাটি শরীরের ৭৮৭ টি  থেকে ৬৭০ টি স্থানকে চিহ্নিত করে সুচ ফুটানোর নির্দিষ্ট জায়গা রয়েছে। সুচ ফুটিয়ে দেহের নির্দিষ্ট স্থান বা আকুপাংচার পয়েন্টকে উত্তেজিত করা হয়। কিন্তু গবেষণায় দেখা গেছে যে আকুপাংচার বিভিন্ন রোগে যেমন এ্যালার্জি, আর্থ্রাইটিস, পেটের রোগ ইত্যাদি রোগ ভালো করার জন্য আকুপাংচার বেশ কার্যকর হয়ে উঠেছে। আকুপাংচার চিকিৎসা বর্তমানে বিশ্বে এটি অনেক উন্নত একটি চিকিৎসা। আকুপাংচার চিকিৎসার জনপ্রিয়তা সব দেশেই বেড়ে চলেছে। 

 

আকুপাংচার কেনো ব্যবহার করা হয়?

আকুপাংচার ঐতিয্যগত চীনা ঔষুধ প্রথা যা হাজার বছর আগে উৎপন্ন হয়েছে। যেটি এখন বিশ্বে একটি উন্নত চিকিৎসা নামে প্রচলন হচ্ছে।  আকুপাংচারকে সাধারণ বলা হয় স্বায়ত্তশাসিত স্নায়ুতন্ত্র এবং রাসায়নিক প্রবাহ যে রক্ত প্রবাহ ও চাপকে নিয়ন্ত্রন করে। প্রদাহ কমাতে এবং মস্তিষ্কে প্রশমিত করে, যার ফলে আপনি আরও আরামপ্রদ বোধ করেন। আকুপাংচার শরিরের যেকোন ধরণের ব্যাথা ভালো করার কাজে বেশি ব্যবহার করা হয়। সাধারণত আকুপাংচার সুচ দিয়ে একের অধিক রোগ ভালো করে থাকে। এছাড়াও আকুপাংচার শরিরের যেসব রোগের ওষুধ হিসেবে কাজ করে সেগুলো হলোঃ 

  • উদ্বেগ 
  • অনিন্দ্রা 
  • ডিপ্রেশন
  • বাত
  • দীর্ঘস্থায়ী ব্যাথা 
  • ডিপ্রেশন
  • মাইগ্রেন
  • বমি বমি ভাব
  • ওজন কমানো

এছাড়াও কিছু মানুষকে উন্নত করার জন্য আকুপাংচার ব্যবহার করে বিশেষ করে ধূমপান ত্যাগ করতে এবং অন্যান্য আসক্তির জন্য চিকিৎসার একটি অংশ হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। আকুপাংচার মুখে ব্যবহার করে যাতে করে চেহারা উন্নত হয়। আকুপাংচার একজন মানুষের শরিরে ৯০ শতাংশ সুস্থ করে টলে। দীর্ঘদিন ধরে যাদের ব্যাথা ভালো হয়না মূলত তারা আকুপাংচার থেরাপি নিতে চায়। আকুপাংচার দীর্ঘদিনের ব্যাথা ঠিক করতে যাদুর মতো কাজ করে।

 

আকুপাংচার শরিরের কোন কোন জায়গায় ব্যবহার করা হয়?

আকুপাংচার সুচটি সাধারণত শরিরের নির্দিষ্ট কোন স্থানে ব্যবহার করা হয়না এটি মূলত শরিরের সব জায়গায় এটি ব্যবহার করা হয়। এতে বিভিন্ন ধরনের রোগ ভালো করতে সাহায্য করে থাকে। আকুপাংচার চীন দেশের একটি প্রচলিত চিকিৎসা যেটা এখন বিশ্বে উন্নত একটি চিকিৎসার মধ্যে পরে। আকুপাংচার সুচ শরিরের বিশেষ কিছু যায়গায় ব্যবহার করা হয় যেমনঃ মুখ, হাত, কাধ, পিঠ, মাজা, পেট, পা ইত্যাদি যায়গায় ব্যবহার করা হয়। 

আকুপাংচার কিভাবে কাজ করে?

বিজ্ঞানিরা এখনও বুঝতে পারেন না যে আকুপাংচার সুচ মূলত কি কাজ করে এবং এর ব্যবহার কতদূর পর্যন্ত করা যাবে। কিন্তু আকুপাংচার চিকিৎসাটি নিয়ে অনেকের কঠিন রোগ থেকে মুক্তি পেয়েছে। আকুপাংচারকে স্বায়ত্তশাসিত স্নায়ুতন্ত্র এবং রাসায়নিক প্রবাহ বলা হয়। যেটি রক্ত প্রবাহ ও চাপকে নিয়ন্ত্রন করে এবং মস্তিষ্কে প্রশমিত করে, যার ফলে যে কেউ আরাম পেয়ে থাকেন। আকুপাংচার সুচটি শরিরের ব্যাথা জনিত যায়গাই ফুটানোর পরে সে যায়গায় রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায়। রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পেয়ে সে যায়গার ব্যাথা ভালো করতে সাহায্য করে থাকে। মানব দেহের শরিরে রক্ত চলাচল সচল করতে আকুপাংচার ব্যবহার করা হয়।

 

আকুপাংচার এর সুবিধা?

দীর্ঘস্থায়ী ব্যথায় ভুগলে আকুপাংচার সুচ দিয়ে থেরাপি দাওয়া হয়। আকুপাংচার শুধু ব্যাথার কাজে ব্যবহার করেনা এটি আরও অনেক ধরনের অসুবিধা থেকে মুক্তি দিয়ে থাকে। যেমনঃ

  • পিঠে ব্যথা হ্রাস করে
  • বিকিরণের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া উন্নত করে
  • শরীর থেকে আঘাত আহরণ
  • মাথাব্যথা দূর করে
  • উদ্বেগ 
  • অনিন্দ্রা 
  • ডিপ্রেশন
  • বাত
  • দীর্ঘস্থায়ী ব্যাথা 
  • ডিপ্রেশন
  • মাইগ্রেন
  • বমি বমি ভাব
  • ওজন কমানো ইত্যাদি।

আকুপাংচারের কিছু অসুবিধা ।

আকুপাংচার থেরাপিটি চিকিৎসক এর পরামর্শ ছাড়া আপনি একাই নিতে যাবেন না। এতে করে সমস্যা আরও বৃদ্ধি পাবে। আকুপাংচার সুচ থেরাপি যতটা সহজ দেখে মনে হলেও এটি অনেক সূক্ষ্ম একটি থেরাপি। আকুপাংচার যত্ন বা সাবধানে ব্যবহার না করতে রক্তের ঝুকি থাকতে পারে। এতে করে শরিরে রক্তপাত হওয়ার ঝুকিও থাকে। তাই আকুপাংচার থেরাপি চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে আকুপাংচার থেরাপি ব্যবহার করতে হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *