সুস্থ্য হাড় গঠনের জন্য কার্যকর উপায়।

প্রথমে জনে নেওয়া যাক , শক্তিশালী হাড় বা স্বাস্থ্যকর হাড় কি এক , নাকি আলাদা জিনিস ।না, দুইটা একই জিনিস , স্বাস্থ্যকর হাড়ই শক্তিশালী, আর শক্তিশালী হাড়ই স্বাস্থ্যকর ।

স্বাস্থ্যকর হাড় তৈরি করা কি আসলেই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন ? আসলেই গুরুত্বপূর্ন । না হয় আপনার বয়স বাড়ার সাথে সাথে নানান সমস্যা হতে পারে ।

একবারে ছোটবেলা থেকে ৩০ বছর পর্যন্ত আমাদের হাড়ের গঠন হয়ে থাকে । এই সময় যদি যথেষ্ট মিনারেল আপনার হাড়ে না পায় , তখন হাড়ের গঠন ভাল হয় না । হাড়ের ভর হয় হালকা । যেটা আস্তে আস্তে অনেক সমস্যার কারণ হয়ে থাকে ।

তবে আশার কথা হল সঠিক খাদ্যাভাস এবং ব্যায়ামের মাধ্যমে আপনি আপনার হাড়কে সবসময়ই ভাল রাখতে পারেন ।

হাড় সুস্থ্য রাখতে অনেকগুলো প্রাকৃতিক উপায় আছে । আজকে শুধু শাকসবজি নিয়ে কথা বলব । বাকি উপায়গুলো নিয়ে ধারাবাহিকভাবে লিখব নিয়মিত ।

শাকসবজি আপনার হাড়ের জন্য কতটা উপকারী বলে শেষ করা যাবে না ।

হাড়ের গঠনের জন্য ভিটামিন সি অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ন । ভিটামিন সি তে রয়েছে প্রচুর অন্টি অক্সিডেন্ট , যেটা হাড়ের কোষকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে পারে ।

এছাড়া কিছু গবেষনায় দেখা গেছে , সবজি হাড়ের খনিজ ঘনত্ব বাড়ায় ।

বয়স্কদের হাড়ে কিছু সমস্যায় বেশি হয়ে থাকে সেটা হল অস্টিওপেনিয়া এবং অস্টিওপেরোসি । অস্টিওপেনিয়া হল হাড়ের ভর কমে যাওয়া । আর অস্টিওপেরোসিস হল হাড় ভঙ্গুর হয়ে যাওয়া । সামান্য একটু হোঁচট খেয়ে পরলেও দেখা যায় হাড় ভেঙ্গে যায় ।

আমাদের দেশে যেইসব শাকসবজি গুলো পাওয়া যায় , বিশেষ করে সবুজ , হলুদ শাকসবজি অনেক উপকারি এই ক্ষেত্রে । এইগুলোতে যথেষ্ট পরিমান ভিটামিন এবং খনিজ উপাদান থাকে । তাই নিশ্চিন্তে এইগুলো খেতে পারেন ।

৫০ বছরের বেশি বয়সী মহিলাদের উপর করা একটি গবেষনায় দেখা গেছে যে, যারা নিয়মিত পেঁয়াজ খান তাদের অস্টিওপরোসিসের ঝুঁকি ২০% কম, যারা পেয়াজ কম খান তাদের তুলনায় ।

তাই নিয়মিত পেয়াজ খেতে পারেন অস্টিওপরোসিসের ঝুঁকি কমাতে ।

ধন্যবাদ
ডাঃ সাইফুল ইসলাম , পিটি
বিপিটি , এমপিটি(অর্থোপেডিক)
ফিজিওথেরাপি কনসালট্যান্ট ,
ভিশন ফিজিওথেরাপি সেন্টার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *